এবার ময়মনসিংহ-৩ আসনের সংসদ সদস্যের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ: ভিডিও ভাইরাল

ময়মনসিংহ-৩ আসনের সংসদ সদস্য নাজিম উদ্দিন আহমেদের বিরুদ্ধে চাকুরীর প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ এবং ভিডিও ধারণ করে প্রায় দুই বছর যাবত যৌন হয়রানির অভিযোগ তুলেছেন গৌরীপুর উপজেলার তৌহিদা আক্তার (৩২)।

ভুক্তভোগী তৌহিদা আক্তার বলেন, আমি সাধারণ একজন পরিবারের মেয়ে। আমার চাকুরীর বিশেষ প্রয়োজন থাকায় ময়মনসিংহ-৩ আসনের এমপি নাজিম উদ্দিন আহমেদের সাথে দেখা করে চাকুরীর কথা বলি। উনি আমাকে চাকরি দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে পরদিন ময়মনসিংহ জেলার মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কার্যালয়ে দেখা করতে বলেন। ওনার কথামতো পরদিন অর্থাৎ ২০ শে জানুয়ারি ২০১৯ ইং তারিখ রবিবার আনুমানিক সন্ধ্যা ৭.৩০ এ উল্লেখিত কার্যালয়ের অফিস কক্ষে দেখা করি আমার চাকরির বিষয়ে কথা বলার জন্য উক্ত কার্যালয়ে দু’তলায় অন্য একটি কক্ষে উনি আমাকে নিয়ে যান। কথা বলার এক পর্যায়ে উনি আমাকে সাধারণ কোলড্রিংস জাতীয় পানি পান করতে বলায় আমি পান করি। আসলে উনি আমার সরলতার সুযোগে সাধারণ কোল্ড্রিংসের বোতলে অন্য অতি মাত্রার এলকোহল মিশ্রিত পানি পান করিয়ে আমার মস্তিষ্ক বিকৃতি ঘটিয়ে নির্যাতন ও ভয় দেখিয়ে ইচ্ছার বিরুদ্ধে আমাকে ধর্ষণ করে ভয় দেখায় ও হুমকি দেয় যে উক্ত যৌন হয়রানির বিষয়টি গোপন ক্যামেরায় ভিডিও রেকর্ডিং করে রেখেছেন। আমি যদি এই বিষয়গুলো অন্য কাউকে জানাই তাহলে আমাদের পরিবারের অন্য সদস্য ও আমাকে মারাত্মক ক্ষতি করে গৌরীপুর উপজেলা ছাড়া করবেন।

তারপরও এমপি সাহেব উল্লেখিত ভিডিও রেকর্ডিং এ আমার আপত্তিকর ছবি ও ভিডিও আমার পরিবারের অন্য সদস্যদের দেখানোর হুমকিও ভয় দেখিয়ে বার বার আমাকে যৌন হয়রানি করতেছেন। আমি অনেক কৌশল করে গোপন ক্যামেরায় ধারণ করা ভিডিও রেকর্ডিং কপি সংগ্রহ করি।

যৌন নির্যাতনের শিকার তৌহিদা ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার পূর্ব দাপুনিয়া গ্রামের মোঃ আব্দুল হাই এর কন্যা।

তৌহিদা আক্তার গৌরীপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন এ ব্যাপারে। সেই অবিযোগপত্রের কপিটি ধর্ষণের ভিডিওর সাথে ইতিমধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

এ বিষয়ে জানার জন্য গৌরীপুর থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) কে ফোন করা হলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

আরো পড়ুন পোস্ট করেছেন

Comments

লোড হচ্ছে...
শেয়ার হয়েছে