ইজরায়েলের সাথে সাধারণীকরণ অবৈধ ঘোষণা করেছে মুসলিম স্কলার্স ইউনিয়ন

রবিবার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিয়ন ফর মুসলিম স্কলারস (আইইউএমএস) ইজরায়েলি দখলদারির সাথে মুসলমানদের সম্পর্কের কোনও স্বাভাবিককরণ অবৈধ ঘোষণা করেছে।

এক বিবৃতিতে আইইউএসের মহাসচিব আলী আল-কারাডাগি বলেছেন, সাধারণীকরণ ফিলিস্তিনিদের ভূমিতে কয়েক দশক ধরে দীর্ঘ দখল অব্যাহত রাখতে ইজয়েলকে উৎসাহিত করে।

তিনি বলেন, “আল-আকসা মসজিদ এবং জেরুজালেম দখলকারীদের সাথে সাধারণকরণ নিষিদ্ধ এবং এটি একটি রাষ্ট্রদ্রোহ হিসাবে বিবেচিত হয়,”

১৯৬৭ সালের আরব-ইজরায়েলি যুদ্ধের সময় ইজরায়েল পশ্চিম তীর এবং পূর্ব জেরুজালেম দখল করে, যেখানে আল-আকসা মসজিদটি অবস্থিত।

দশকের পর দশক ধরে আরব দেশগুলো ইসরায়েলকে বয়কট করে আসছিল। ফিলিস্তিন সংকটের সমাধান হলেই কেবল তেল আবিবের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন হতে পারে, এমন ইঙ্গিত ছিল তাদের। এর ব্যতিক্রম ঘটিয়ে গত মাসে সংযুক্ত আরব আমিরাত ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে রাজি হয়। এবার বাহরাইনও একই পথ ধরল।

ইজরায়েলের সাথে কূটনৈতিক সম্পর্কযুক্ত চতুর্থ আরব দেশ হয়ে উঠল বাহরাইন। এর আগে আরব রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে ১৯৭৯ সালে মিশরের পরে, ১৯৯৪ সালে জর্ডান এবং ২০২০ সালের আগস্টে সংযুক্ত আরব আমিরাত ইজরায়েলের সাথে কূটনৈতিক সম্পর্কে যুক্ত হয়।

সাধারণীকরণের বিষয়ে ফিলিস্তিনিরা ব্যাপক নিন্দা প্রকাশ করেছে, তারা বলেন, এই জাতীয় চুক্তিগুলি ফিলিস্তিনিদের পক্ষে কাজ করে না এবং ফিলিস্তিনিদের অধিকারকে অগ্রাহ্য করে।

ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষ বলেছে যে ইজরায়েলের সাথে যে কোনও চুক্তি ইজরায়েলের দাবি অনুযায়ী “শান্তির জন্য স্থল” নীতিতে নয় “শান্তির জন্য ভূমি” নীতির ভিত্তিতে আরব শান্তি উদ্যোগের ভিত্তি হওয়া উচিত।

সূত্র- আনাদোলু এজেন্সি

আরো পড়ুন পোস্ট করেছেন

Comments

লোড হচ্ছে...
শেয়ার হয়েছে