দেশবাসীকে ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন পীর সাহেব চরমোনাই

পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে দেশবাসীকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ জানিয়েছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতী সৈয়দ মোহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই।

বুধবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতী সৈয়দ মোহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই এক শুভেচ্ছা বার্তায় এবারের ঈদুল আযহায় সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারের মাধ্যমে পারস্পরিক সহযোগিতা নিয়ে অসহায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ইসলামে ফেৎনা-ফাসাদ, হিংসা-বিদ্বেষের কোনো স্থান নেই বরং ভ্রাতৃত্বের বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে সত্যিকার মানুষরূপে গড়ে উঠার শিা দেয়। তাই একমাত্র ইসলামই পারে অশান্ত দুনিয়ায় শান্তির সুবাতাস জারি করতে।
পীর সাহেব বলেন, কুরবানীর ঐতিহাসিক শিা ও তাৎপর্য নিয়ে পবিত্র ঈদুল আযহা সমাগত। ঈদুল আযহা আমাদেরকে ত্যাগ ও কুরবানীর আদর্শে উজ্জীবিত করে। মহান আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য আল্লাহর উদ্দেশ্যে সবকিছু বিলীন করে দেয়ার চেতনা জাগ্রত করে ঈদুল আযহা। সামাজিক বৈষম্য দূর করেসন্ত্রাস, দুর্নীতি, মাদক, শোষণমুক্ত ও ইনসাফ ভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠায় কুরবানী আমাদেরকে অনুপ্রেরণা দেয়। ত্যাগ ও কুরবানীর মানসিকতা নিয়ে ব্যক্তিগত, সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে ন্যায় এবং ইনসাফ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে ইসলামকে পরিপূর্ণভাবে অনুসরণ করতে হবে। আর এর মাধ্যমেই কেবল মহান আল্লাহ তায়ালার সন্তুষ্টি অর্জন করা সম্ভব।

পীর সাহেব বলেন, করোনা পরিস্থিতির কারণে মানুষের ব্যবসা-বাণিজ্য বন্ধ, চাকুরী-কর্ম হারিয়ে অসহায় হয়ে পড়েছে। আমফান ও বন্যার পানিতে ঘর-বাড়ি তলিয়ে যাওয়ায় মানুষ অত্যন্ত মানবেতর জীবন-যাপন করছে। বন্যায় আক্রান্ত পরিবারে ঈদের আনন্দের পরিবর্তে বিরাজ করছে বুকভরা বেদনা। এবারের ঈদুল আযহায় সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারের মাধ্যমে পারস্পরিক সহযোগিতা নিয়ে অসহায় তিগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়াতে দলের নেতাকর্মীসহ দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান। সেইসাথে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতবরণকারীদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন।
চরমোনাই পীর বলেন, আসুন শান্তির পক্ষে অবস্থান নিয়ে ইসলামের শ্বাশত বিধান প্রতিষ্ঠায় আত্মনিয়োগ করি, তাহলে দুনিয়ার শান্তি ও আখেরাতে সীমাহীন নিয়ামতের অংশিদার হতে পারবো ইনশাআল্লাহ।

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর নেতৃবৃন্দ যে যেখানে ঈদের নামায আদায় করবেন : ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম (পীর সাহেব চরমোনাই) ও নায়েবে মুফতী সৈয়দ ফয়জুল করীম (শায়খে চরমোনাই) নিজ গ্রাম বরিশালের ঐতিহাসিক চরমোনাই মাদরাসা মসজিদে ঈদের জামাতে ইমামতি করবেন।

  • নায়েবে আমীর মাওলানা আবদুল হক আজাদ মুহাদ্দিস বগুড়া, নায়েবে আমীর মাওলানা আব্দুল আউয়াল খুলনায় ও প্রেসিডিয়াম সদস্য মাওলানা সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল মাদানী ঢাকার মুগদায় নামাজ আদায় করবেন, এবং মহাসচিব মাওলানা ইউনুছ আহমাদ জুরাইন ঈদের নামাজ আদায় করবেন। যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা নেয়ামতুল্লাহ আল ফরিদী বনানী কেন্দ্রীয় মসজিদে ঈদের জামাতে ইমামতি করবেন। অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান ঢাকায় ও মাওলানা গাজী আতাউর রহমান ঢাকার ক্যান্টনমেন্ট মানিকদীস্থ ঈদের জামাতে ইমামতি করবেন। মাওলানা আবদুল কাদের মেহেরপুরে, ঢাকা মহানগর দণি সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ আলম ঢাকার মুহাম্মদপুরে, উত্তর সভাপতি প্রিন্সিপাল মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদ ভাটারা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে এবং সাংগঠনিক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আশরাফুল আলম ঢাকা মিরপুর ঈদগাহে, কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক ঢাকার মেরাজনগরে মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ূম নামাজ আদায় করে স্থানীয় বিশিষ্টজনদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন।

আরো পড়ুন পোস্ট করেছেন

Comments

লোড হচ্ছে...
শেয়ার হয়েছে