তাড়াশে গুল্টা হাইস্কুলের বাথরুম থেকে ইলেকট্রনিক্স মেকার আঃ মতিনের লাশ উদ্ধার

আব্দুল্লাহ আল মাহবুব, সিরাজগঞ্জ: সিরাজগঞ্জের তাড়াশে আব্দুল মতিন (৩৮) নামের এক ইলেকট্রনিক্স মেকার কে হত্যা করে স্কুলের বাথরুমে ফেলে রেখে গিয়েছে দুর্বৃত্তরা।

  • বুধবার (১৬ জুন) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে আব্দুল মতিনের রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।

থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বুধবার (১৬ জুন) সকাল সারে ১০ টার দিকে একদল কিশোর ছেলে গুল্টা দ্বিমূখী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ফুটবল খেলছিলেন। হঠাৎ তাদের বল বিদ্যালয়ের নলকূপ ও পায়খানার প্রাচীরের মধ্যে যায়। তখন তারা লাশ দেখতে পান। পরে থানা পুলিশকে বিষয়টি জানান।

নিহতের স্ত্রী শেফালীর অভিযোগ, তার স্বামী আব্দুল মতিনকে (৩৮) হত্যা করা হয়েছে। এদিকে নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় বেশ কয়েকজন বলেন, টিভি মেকার আব্দুল মতিনের এক ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর মেয়ের সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিলো। সে কারণেও তাকে হত্যা করা হতে পারে। তারা আরো বলেন, আগেও ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর মেয়েদের সাথে প্রেম ঘটিত ব্যাপারে এসাহাক আলী, রওশন বাউল ও আবু সাইদ নামে এক গৃহ শিক্ষককে বেদম মারপিট করে হত্যার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু তারা প্রাণে বেঁচে যান।

এদিকে পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, মঙ্গলবার রাতের কোন এক সময় তালম ইউনিয়নের গুল্টা বাজার দ্বি-মুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের বাথরুমে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

নিহত আব্দুল মতিন উপজেলার গুল্টা বাজারে একটি দোকান দিয়ে দীর্ঘদিন যাবত টিভি, ফ্রিজ মেরামতের কাজ করে আসছিলেন। তিনি উপজেলার তালম ইউনিয়নের তালম পদ্মপাড়া গ্রামের মৃতঃ ফজলার রহমানের ছেলে।

তাড়াশ থানার ওসি ফজলে আশিক গণমাধ্যমকে বলেন, ঘটনাটি হত্যাকাণ্ড কিনা তা এখনি পুরোপুরি ভাবে বলা যাচ্ছে না। তবে প্রাথমিকভাবে তার রক্তাক্ত মৃতদেহ দেখে ধারণা করা হচ্ছে এটি হত্যাকাণ্ড হতে পারে।

আরো পড়ুন পোস্ট করেছেন

Comments

লোড হচ্ছে...
শেয়ার হয়েছে